প্রশ্ন এবং উত্তর লেবেলটি সহ পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে৷ সকল পোস্ট দেখান
প্রশ্ন এবং উত্তর লেবেলটি সহ পোস্টগুলি দেখানো হচ্ছে৷ সকল পোস্ট দেখান

সোমবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৮

বিয়ের আগে যৌন মিলন বা সেক্স করলে স্বামী কি সেটা বুঝতে পারবে ?

বিয়ের পূর্বে স্ত্রী অন্য কারো সাথে যৌন মিলন বা সেক্স করেছে কিনা তা বুঝার উপায় কি - ছেলেই এই ধরণের প্রশ্ন করে থাকে। আবার অনেক মেয়েও প্রশ্ন করে থাকে - কোনো মেয়ে বিয়ের আগে ২বার সেক্স করলে বিয়ের পর তার স্বামী কি বুঝতে পারে?

এটা আপনার যোনিদ্বারের উপর নির্ভর করবে। দুই বার সঙ্গম করার ফলে আপনার যোনিপথ যদি সরু হয়ে যায় তাহলে আপনার স্বামী বুঝতে বাকী থাকবে না যে আপনি বিবাহের পূর্বে সঙ্গম করেছেন। কেননা কম বেশি সবাই জানে যে প্রথম সঙ্গমে স্বামী–স্ত্রীর উভয়রই কষ্ট হয়। এবং প্রত্যেক ছেলে মেয়ে জানে যে প্রথম সঙ্গমে সতিচ্ছেদ ছেড়ার কারণে সামান্য রক্তপাতও হয়।
বিয়ের আগে যৌন মিলন বা সেক্স করলে স্বামী কি সেটা বুঝতে পারবে ?
আবার অনেক ক্ষেত্রে পূর্বে সঙ্গম না করার কারণেও প্রথম মিলনে রক্তপাত নাও হতে পারে। কেননা খেলাধুলার কারণেও সতীচ্ছেদ ছিড়ে যেতে পারে। এটা আপনার স্বামী জানে তাহলে প্রথমে সন্দেহ নাও করতে পারে কিন্তু এটা যদি সে না জানে তাহলে আপনি প্রথমেই সন্দের তালিকায় চলে যাবেন।

তারপর হচ্ছে কয়েকবার সঙ্গম করার ফলে যোনি পথ ফ্রি হয়ে যাওয়া। প্রথম কয়েকবার মিলনে পুরুষাঙ্গ যোনিপথে চলাচল করতে কিছুটা বেগ পেতে হয় কিন্তু পরবর্তীতে সেটা আর থাকে। তখন যোনি পথ ফ্রি হয়ে যায় যার কারণে যোনিপথে পুরুষাঙ্গ অনায়াসে চলাচল করতে পারে।

এখন এটা যদি আপনার ক্ষেত্রে হয়ে যায় তাহলে আপনার স্বামীকে বুঝতে বাকী থাকবে না কিন্তু এটা যদি আপনার ক্ষেত্রে না হয় তা হলে হয়ত বেঁচেই গেলেন। আর যদি সে বুঝতে পারে তাহলে সংসারে অশান্তি নেমে আসতে পারে। কেননা অবৈধ সম্পর্কের ফলাফল ভালো হয় না সেটা বাস্তবে প্রমাণিত। আপনার যদি ভাগ্য ভালো হয় তাহলে আপনি দুনিয়া যাত্রা থেকে হয়ত রেহায় পেতে পারেন। কিন্তু পরকালে আমানতের খেয়ানত করার জন্য আল্লাহর কাঠগড়ায় আপনাকে জবাব দিহি করতে হবে। সময় তো ফুরিয়ে যায়নি? আল্লাহর কাছে ফানাহ চান নিশ্চয় আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করবেন।
বিস্তারিত

বৃহস্পতিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৪

পুরুষের বীর্য পানে কোনো ক্ষতির সম্ভবনা রয়েছে কি?

অনেকেই এরকম প্রশ্ন করেন যে মেয়েরা যদি ছেলেদের বীর্য পান করে তাহলে কি গর্ভবতী হওয়ার কোন সম্ভাবনা আছে? অথবা বীর্য পান করলে কোনো প্রকার ক্ষতি হয় কি ? আরো নানান প্রশ্ন। আসুন জেনে নেই এ সংক্রান্ত কিছু তথ্যাদি যা হয়ত আমরা অনেকেই জানি না।
  • কোনো মেয়ে যদি কোনো পুরুষের বীর্য পান করে তাহলে তার গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা নেই। 
  • যার বীর্য পান করা হচ্ছে যদি ঐ পুরুষের কোন যৌন রোগ থাকে বা সে যদি অপরিচ্ছন্ন জীবনযাপন করে থাকে সেক্ষেত্রে বিভিন্ন যৌনরোগ এমন কি মুখে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। সার্বিক বিবেচনায় যৌনরোগ বা ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার চেয়ে তা প্রতিরোধ করাই বিজ্ঞতার পরিচায়ক। 
  • ধর্মীয় বিধি নিষেধে এরকম কাজ এবং ওরাল সেক্স করতে নিরুতসাহিতকরা হয়েছে। একে অস্বাভাবিক ও অনুচিত বলেছেন প্রায় সবাই।
  • যদিও ডাক্তারদের ভেতরে এ নিয়ে মতভেদ আছে। খুব কম সংখ্যক ডাক্তার বলেন যে এতে কোন ক্ষতি নেই যেহেতু বীর্যে মূলত প্রোটিন থাকে কন্তু এই পরিমান প্রোটিনে মানুষের শরীরের কোন উপকার হয় না। 
কিন্তু পুরু বিষয়টি সৃষ্টির শ্রেষ্ঠজীব হিসেবে আমাদের নিজেদেরই বুঝে নিতে হবে। কারণ, আজকাল পত্রিকার পাতা খুললেই দেখা যায় বিশ্বের নামী দামী সিনেমা তারকারা এসব করতে গিয়ে একসময় মুখের নানা প্রকার মারাত্মক সব ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে। অন্তত তাদের থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়া উচিত।
বিস্তারিত

বৃহস্পতিবার, ২১ আগস্ট, ২০১৪

ছেলেদের প্যারাফিলিয়া বা সেক্সুয়াল ডিসঅর্ডারে করণীয় কি ?

প্রশ্ন :  আমার নাম অভিজিত সরকার, বয়স ২৩৷ বাড়িতে শুধু মা এবং আমি থাকি৷ কিছুদিন আগে সদ্য বিবাহিত এক দম্পতি পেয়িংগেস্ট হিসেবে এসেছে৷ একদিন রাতে পাশের ঘরে গিয়ে মেয়েটির শাড়ি, ব্লাউজ, ইনার ওয়্যার শুকোতে দেওয়া অবস্থায় দেখে আমি সেগুলো হঠাত্‍ পড়ে ফেলি৷ অসাধারণ সেনসেশন হয়৷ তারপর মাঝে মধ্যেই পড়তে থাকি৷ কিন্ত্ত হঠাত্‍ মেয়েটির চোখে পড়ে যাই৷ তারপর থেকেই সে আমাকে দেখলে মুখ টিপে হাসে এবং একদিন জানায় সে আমার পরার জন্য ওই ঘরে আরও ভালো শাড়ি রেখে দেবে৷ মেয়েটিকে কিভাবে ফেস করব? আমার হঠাত্‍ কেন ওর জামাকাপড় পরে ভালো লাগছে? সব ছেলেদেরই কি এরকম হয় ?
উত্তর: না সব ছেলেদেরই এরকম হয় না, তবে কারওর কারওর তো নিশ্চয়ই হয়৷ আপনার সেক্সুয়াল ফ্যান্টাসি, অ্যারাউজাল ও মাস্টারবেশনের প্যাটার্ন জানতে পারলে আরও নিশ্চিতভাবে ডায়াগনোসিস করা যেত৷ আমার মনে হয় আপনার ট্রান্সভেস্টিক ফেটিশিজম আছে৷ এটি একধরণের প্যারাফিলিয়া অর্থাত্‍ সেক্সুয়াল ডিসঅর্ডার৷ আপনি হয়তো আগে এটা এক্সপেরিয়েন্স করেননি, কারণ সঠিক সুযোগের অভাব৷ এই মেয়েটির মেলে রাখা ইনার ওয়্যার আপনার ক্ষেত্রে অনসেট অফ বির্ভোভয়ারের কাজ করেছে৷ 

এই প্যারাফিলিয়া শৈশব বা কিশোর বয়স থেকেই অন্তর্নিহিত অবস্থায় থাকে, কিন্ত্ত এক্সপেরিয়েন্টের অভাবে অনেক সময় আক্রান্ত ব্যক্তি তা নিজেও জানতে পারেন না৷ আপনি যবে থেকে এই অ্যাক্টিভিটি আরম্ভ করেছেন তার পর থেকে আপনার নিজের মনেই একটা খটকা লেগেছে৷ ছ'মাসের বেশি যদি এই প্র্যাকটিস চলতে থাকে তাহলে ভবিষ্যতে স্বাভাবিক যৌন জীবনযাপনে অসঙ্গতি আসতে বাধ্য৷ সেক্ষেত্রে বিয়ে করলে বা কোনও সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লে পার্টনার যদি সাপোর্টিভ না হন সেটি ভেঙে যাওয়ার চান্সই বেশি৷ 

আপনি যতশীঘ্র সম্ভব একজন সাইকোলজিস্টের পরামর্শ নিন৷ সঠিক ডায়াগনোসিস এবং কগনিটিভ বিভোভিয়ারাল থেরাপির মাধ্যমে আপনি চাইলে এই প্র্যাকটিস থেকে বেড়তে পারেন৷ ধৈর্য হারালে চলবে না৷ এটি সময় সাপেক্ষ ব্যাপার৷ মেয়েটিকে ইগনোর করার চেষ্টা করুন৷ হাসলে তাকাবেন না৷ কোন টীকা টিপ্পনী করলেও না৷ তবে স্বাভাবিক কথাবার্তা বলতে এলে আপনারও সাড়া দেওয়া উচিত্‍৷
বিস্তারিত

বৃহস্পতিবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৪

আমার বিবাহ হয়েছে ১৬ মাস, আমার সমস্যা হচ্ছে, আমার ফিলিংস আসে কম এবং খুব তাড়াতাড়ি বীর্যপাত হয়।

সম্মানিত পাঠকের প্রশ্ন :- ভাই, আমার বিবাহ হয়েছে ১৬ মাস, আমার সমস্যা হচ্ছে, আমার ফিলিংস আসে কম এবং খুব তাড়াতাড়ি বীর্যপাত হয়। আমার বয়স ৩২ বছর। উচ্চতা ৫'৫"। ওজন ৬৭ কেজি। বিয়ের পুরবে হস্তমৈথুন এর অভভাস ছিল। আর কোন ধরনের বাজে অভ্যাস নেই। সমাধান সম্ভব কিনা? আর কতদিন এ ভালো হতে পারে। আমি এলোপ্যাথি চিকিৎসা নিয়েছি। ওষুধ যতদিন খাই মোটামুটি কাজ হয়। বন্ধ করলে কাজ হয়না।
আমার ফিলিংস আসে কম এবং খুব তাড়াতাড়ি বীর্যপাত হয়
আমাদের ফেইসবুক পাতায় প্রশ্নটি করেছিলেন আমাদের সম্মানিত একজন পাঠক ভাই। বিষয়টা নিয়ে এখানে লেখার কারণ হলো, এ সমস্যাটা আমাদের দেশে প্রায় সার্বজনীন অর্থাৎ আমাদের এই ভাই একাই শুধু এ রকম সমস্যায় আক্রান্ত নন। ওনাকে অনেক ধন্যবাদ কমেন্টটি করার জন্য। আর আমি আশা করি ওনার কমেন্টটির জন্য আরো লাখ লাখ তরুণ উপকৃত হবেন।

উত্তর :-
ধন্যবাদ আমার ভাই, কমেন্টটি করার জন্য। আপনাদের কাছে অনুরোধ মেহেরবানী করে আমাদের ব্লগের সবগুলি আর্টিকেল সময় করে একবার পড়ে নিবেন। তখন দেখবেন আপনাদের অনেকের সমস্যা এমনিতেই ঠিক হয়ে গেছে। আমার ভাই, আপনি যে সমস্যাটি নিয়ে লিখেছেন, আমরা বার বার বলে আসছি:-
"যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য বিবাহিত পুরুষের কোনো প্রকার উত্তেজক ঔষধ খাওয়ার প্রয়োজন নেই।  কারণ স্বাভাবিক খাবার দাবার থেকেই প্রতিটা পুরুষ তার যৌন শক্তি লাভ করে থাকে।"
আর আপনার যে সমস্যাটি সেটা অপ্রাকৃতিক উপায়ে তৈরী করা। আপনি যদি এ অবস্থায় যৌন শক্তি বৃদ্ধির জন্য ঔষধ খেতে থাকেন তাহলে আপনাকে সারা জীবন তা খেয়ে যেতে হবে। কিন্তু প্রবলেম হলো কিছু দিন পরই তা আর আপনার শরীরে কাজ করবে না। সাথে লিভার, হার্ট এবং কিডনিতে দেখা দিবে নানান জটিলতা। তাই ভুল করেও আর ঐ পথে হাত বাড়াবেন না। 

এবার আসেন কিভাবে সমস্যাটা নির্মূল করবেন। হোমিওপ্যাথি আপনার যৌনশক্তি বাড়াবে না। হোমিওপ্যাথি যে কোনো সমস্যার কারণটাকে তার মূল থেকে নির্মূল করে দেয় আর তখন অটোমেটিক ভাবেই রোগটি চিরদিনের জন্য শরীর থেকে দূর হয়ে যায়।

আপনারা হয়ত জানেন মানুষের শরীর হচ্ছে সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর সবচেয়ে জটিল এক মেশিন। যখন আপনি হস্তমৈথুন করতেন না তখন কিন্তু আপনি ঠিকই ছিলেন। দীর্ঘ দিন এই কাজটি করার কারণে আপনার শরীরে যৌন দুর্বলতা সমস্যাটা সৃষ্টি হয়েছে যেটি স্বাভাবিক খাবার দাবার থেকে ফিল আপ করতে পারছে না। এখন দরকার সমস্যাটার মূল কারণটাকে তার রুট লেভেল থেকে দূর করে দেয়া। তখন দেখবেন আপনার মেশিন (শরীর) আগের মতই সঠিক ভাবে কাজ করছে। তার জন্য আর কোনো প্রকার ঔষধ খাওয়ারই দরকার নেই। মাত্র কয়েক মাসের প্রপার হোমিওপ্যাথি চিকিত্সা নিলেই দেখবেন, আবার নব যৌবনে ভরে উঠেছে আপনার যৌন জীবন। আর আপনারা সুখে থাকেন, আনন্দে থাকেন এটাই আমাদের কামনা।
বিস্তারিত